1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

৩০ বছর পর জানা গেল মুক্তিযোদ্ধা সনদ জাল!

  • Update Time : মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১
  • ১৬২ Time View

ডিবিডি ডেস্ক : ৩০ বছর চাকরি শেষে অবসর নেওয়ার পর প্রমাণ পাওয়া গেল মুক্তিযোদ্ধার জাল সনদে সোনালী ব্যাংকে চাকরি নিয়েছিলেন তিনি। ফলে চাকরির সময়ে বেতন-ভাতা ও ঋণ বাবদ অবৈধভাবে প্রায় দেড় কোটি টাকা গ্রহণ করায় সোনালী ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) প্রদীপ কুমার শর্মা এখন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চার্জশিটভুক্ত আসামি।

মঙ্গলবার (২২ জুন) মহানগর দায়রা জজ আদালতে তার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আরিফ সাদেক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ২০১৯ সালের ২৫ জুলাই দুদকের উপপরিচালক মো. হাফিজুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছিলেন।

তদন্ত প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, আসামি প্রদীপ কুমার শর্মা সোনালী ব্যাংকে ১৯৮৩ সালে সিনিয়র অফিসার পদে আবেদন করেন। মুক্তিযোদ্ধা কোটায় করা আবেদনে নিজের বয়স ২৯ বছর ৪ মাস উল্লেখ করেন। তিনি ১৯৮৪ সালের ১০ জুলাই সিনিয়র অফিসার পদে যোগদান করে ২০১৪ সালের ৩০ জুন ডিজিএম হয়ে ৬০ বছর বয়সে অবসরে যান। ৩০ বছরের চাকরি জীবনে সোনালী ব্যাংক থেকে বেতন বাবদ ৬৯ লাখ ৩১ হাজার ৭৯৪ টাকা, উৎসব বোনাস বাবদ ১৬ লাখ ১২ হাজার ৫২৩ টাকা এবং গৃহ নির্মাণ ঋণ, গাড়ি ও কম্পিউটার ঋণ বাবদ ৪৬ লাখ ১২ হাজার ৮৬৬ টাকা উত্তোলন করেন প্রদীপ কুমার।

সব মিলিয়ে তিনি ১ কোটি ৩১ লাখ ৫৭ হাজার ১৮৩ টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছেন বলে প্রমাণিত হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা সনদ জাল প্রমাণিত হওয়ায় জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের ২৩তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রদীপ কুমার শর্মাকে সরকারি বেতন-ভাতাসহ ভোগ করা অর্থ ফেরত দিতে হবে। দুদকের তদন্তেও প্রদীপ কুমার শর্মার মুক্তিযোদ্ধা সনদ জাল প্রমাণিত হয়েছে।

তার বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪২০/৪০৯/৪৬৭/৪৬৮/৪৭৭-ক এবং ১৯৪৭ সনের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com