1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

কোটবাজার দোকান লোট করতে গিয়ে আনোয়ার বাহিনীর রুহুল আমিন গ্রেপ্তার

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ, ২০২০
  • ৫০ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক : উখিয়ার কোটবাজার কাঁচাবাজারে ১৮ মার্চ (বুধবার) রাত ১১টায় লিটন সওদাগরের দোকানে আনোয়ার বাহিনী হামলা চালিয়ে নগদ ৭০ হাজার টাকা লোট করে ও লক্ষাধিক টাকার মালামাল নষ্ট করছে বলে জানা গেছে। পুলিশ ঘটনা স্থল থেকে আনোয়ার বাহিনীর রুহুল আমিনকে গ্রেপ্তার করেছে।

কোটবাজার কাঁচাবাজারের পাইকারি ব্যবসায়ী লিটন সওদাগর একজন প্রতিষ্টিত ব্যবসায়ী। ৮ জন কর্মচারী কাজ করে দোকানে। সারাদিন বেচা-কেনা করে হিসাব নিকাশ করার সময় রাত ১১টায় আনোয়ার বাহিনীর ৫-৬ জন সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ৭০ হাজার টাকা নিয়ে যাওয়ার সময় বাধা দিলে প্রায় লক্ষাধিক টাকার মালামাল নষ্ট করেছে জানান দোকান মালিক। ঐ সময় দোকানের ৩ জন কর্মচারীকে চাকু দিয়ে আহত করেছে। এ সময় জনতা সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করলে আনোয়ার বাহিনীর প্রধান আনোয়ার সহ ৫ জন পালিয়ে গেলেও তার সহযোগী রুহুল আমিন জনতার হাতে আটক হয়।

কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি নুরুল হুদা উত্তেজিত জনতার হাত থেকে রুহুল আমিনকে উদ্ধার করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি নুরুল হুদা বলেন, আনোয়ার বাহিনীর এ কয়েক জন দাগী আসামি কোটবাজারের সমস্ত ব্যবসায়ীকে অতিষ্ট করে তুলেছে। তারা প্রতিনিয়ত মাদক সেবন করে অস্ত্রের মুখে চাদাবাজী করে। আজকেও ৭০ হাজার টাকা লোট করে নিয়ে যাবার সময় বাধা দিলে দোকানের কর্মচারীকে চুরিকাঘাত করে। তাদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি হলে ব্যবসায়ীরা নিরাপদ থাকবে।

ব্যবসায়ী লিটন বলেন, সে আমার দোকানে অতীতেও কয়েকবার হামলা করেছে। আজ আমার দোকান থেকে ৭০ হজার টাকা নিয়ে গেছে। কর্মচারীরা বাধা দিলে তাদের চুরি দিয়ে আহত করে।

ব্যবসায়ী ছাবের আহাম্মদ বলেন, এসব সন্ত্রাসীরা প্রতিনিয়ত মাদক সেবন করে ব্যবসায়ীদের উপর হামলা চালায়। তাদের কে কেউ কিছু বললে তারা অস্ত্রের মুখে ভয় দেখায়। নিরাপদে ব্যবসা করার জন্য আনোয়ার বাহিনীর সন্ত্রাসীরা যা বলে তাই দিয়ে দেয়।

কোটবাজারের হাজার হাজার জনতা পুলিশকে স্বাক্ষী দিয়ে প্রতিবেদক কে বলেন, এসব সন্ত্রাসীদের প্রতিরোধ করতে না পারলে ব্যবসায়ী সহ সাধারন মানুষ নিরাপদে জীবন যাপন করতে পারবেনা।

এস আই ফারহাদ বলেন, ঘটনা স্থল থেকে আনোয়ার বাহীনির রুহুল আমিনকে জনতার সহযোগিতায় আটক করতে সক্ষম হয়েছি। বাকীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি।

রত্নাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খাইরুল অালম চৌধুরি বলেন, ঘটনাস্থলে অামি ছিলাম। সন্ত্রাসীরা সব সময় কোটবাজার চাদাবাজী করে।তাদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি কামনা করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com