1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :
শিরোনাম:
ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষ্যে উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাব’র আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষ্যে উখিয়া উপজেলা প্রশাসনের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ উখিয়ায় সড়কে গাড়ি থামিয়ে প্রকাশ্যে চাঁদা দাবি ফেসবুকে দুই সাংবাদিকের নামে ভিত্তিহীন লেখালেখির বিরুদ্ধে উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাবের বিবৃতি মুক্তিযোদ্ধাদের খসড়া তালিকা প্রকাশ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাব’র তিনদিনের কর্মসূচি সিবিএন’র সংবাদকর্মী ছিনতাইয়ের শিকার, ছিনতাইকারী আটক জামালপুরের সেই ডিসির বেতন কমে অর্ধেক প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম আর নেই

সিপিবির লাল পতাকা সমাবেশে বোমা হামলার মামলায় ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড

  • Update Time : সোমবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৩৩ Time View

ডিবিডিনিউজ২৪ ডেস্ক :

রাজধানীতে সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনায় করা মামলায় ১০ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত দুইজনকে খালাস দিয়েছেন।

সোমবার ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলম এই মামলার রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মুফতি মঈন উদ্দিন শেখ, আরিফ হাসান সুমন, মাওলানা সাব্বির আহমেদ, শওকত ওসমান ওরফে শেখ ফরিদ, জাহাঙ্গীর আলম বদর, মহিবুল মুত্তাকিন, আমিনুল মুরসালিন, মুফতি আবদুল হাই, মুফতি শফিকুর রহমান ও নুর ইসলাম।

এদের মধ্যে মুফতি মঈন উদ্দিন শেখ, আরিফ হাসান সুমন, মাওলানা সাব্বির আহমেদ, শওকত ওসমান ওরফে শেখ ফরিদ রায় ঘোষণার সময় আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। বাকি আসামিরা পলাতক।

জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের শীর্ষ নেতা মুফতি আবদুল হান্নানও এই মামলার আসামি ছিলেন। অন্য একটি মামলায় তার ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় এই মামলা থেকে তাকে বাদ দেওয়া হয়।

মামলা থেকে খালাস পাওয়া দু’জন হলেন- মশিউর রহমান ও রফিকুল ইসলাম মিরাজ।

১৯ বছর আগে ২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি পল্টন ময়দানে সিপিবির লাল পতাকা সমাবেশে বোমা হামলা চালানো হয়। এতে দলটির পাঁচ কর্মী নিহত হন।

নৃশংস ওই হামলার ঘটনায় সিপিবির তৎকালীন সভাপতি মনজুরুল আহসান খান মতিঝিল থানায় মামলা দায়ের করেন। দুই বছর পর ২০০৩ সালের ডিসেম্বরে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মোমিন হোসেন। এরপর আদালতের আদেশে ২০০৫ সালে আবার মামলাটির তদন্ত শুরু হয়। সাত তদন্ত কর্মকর্তার হাত ঘুরে ২০১৩ সালের ২৭ নভেম্বর সিআইডি পরিদর্শক মৃণাল কান্তি সাহা ১৩ আসামির বিরুদ্ধে হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে দুটি অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেন।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সালাউদ্দিন হাওলাদার জানান, ২০১৪ সালের ৪ সেপ্টেম্বর অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে এ মামলার বিচার শুরু হয়। রাষ্ট্রপক্ষে মোট ১০৬ সাক্ষীর মধ্যে ৩৮ জন সাক্ষ্য দেন। তবে আসামিপক্ষে কেউ সাফাই সাক্ষ্য দেননি।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com