1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

সেদিন বন্দুকযুদ্ধে আরো ৩ জনকে হত্যার অভিযোগ

  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৮ আগস্ট, ২০২০
  • ৯৬ Time View

ডিবিডিনিউজ : কক্সবাজারের টেকনাফে সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান পুলিশের গুলিতে নিহতের দিনই চকরিয়ায় ক্রসফায়ারের নামে হত্যা করা হয় আরো তিন যুবককে।

চকরিয়া থানা পুলিশ সেদিনই সংবাদমাধ্যমে প্রেসবিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে জানিয়েছিল, কক্সবাজারের চকরিয়ায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে ৩ মাদক কারবারি নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ওসিসহ ৪ পুলিশ সদস্য। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ৪৪ হাজার পিস ইয়াবা, অস্ত্র ও গুলি। শুক্রবার (৩১ জুলাই) ভোরে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়া বানিয়ারছড়া আমতলী গর্জন বাগান পাহাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাটি ধামাচাপাই পড়তে যাচ্ছিল। কিন্তু মেজর (অব.) সিনহা হত্যার ঘটনার পর স্বজনরা আর চুপ থাকতে পারেননি। এখন জানা যাচ্ছে, পরিকল্পিতভাবেই ওই প্রবাসী ও দিনমজুরকে পটিয়ার বাসা থেকে ধরে চকরিয়ায় নিয়ে ক্রসফায়ারের নামে হত্যা করে চকরিয়া থানা পুলিশ।

জানা গেছে, গত ২৯ জুলাই ভোর ৬টায় পটিয়া উপজেলার কচুয়াই ইউপির ভাইয়ের দীঘির পাড় তালতলা এলাকার নিজ বাসা থেকে আব্দুল আজিজের পুত্র মোহাম্মদ জাফর এবং পটিয়া সদরের পাইকপাড়া এলাকার আবুল কাশেমের পুত্র মোহাম্মদ হাসানকে (৩৭) আটক করে চকরিয়া থানা পুলিশ। পরে জাফরের পরিবারের সদস্যদের কাছে ৫০ লাখ টাকা দাবি করে। টাকা দিতে ব্যর্থ হলে ৩১ জুলাই ভোর রাতে কথিত ইয়াবা উদ্ধারের অভিযানে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে তারা নিহত হয়েছে দাবি করে ৪৪ হাজার ইয়াবা ও ৩০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করার কথা প্রচার করে পুলিশ। এমনকি এ সময় চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান, হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম, কনস্টেবল সাজ্জাদ হোসেন ও মো. সবুজ ‘আহত’ হন বলে জানানো হয়েছিল।

নিহত মোহাম্মদ জাফর ১৮ বছর ধরে প্রবাসে ছিলেন। তার বাড়ি পটিয়া উপজেলার কচুয়াই ইউনিয়নে। চলতি বছরের ১২ মার্চ ওমানপ্রবাসী জাফর দেশে আসেন। লকডাউনের আগে দেশে আসলে করোনাভাইরাসে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আর বিদেশে যেতে পারেননি। অপরজন মোহাম্মদ হাসান পেশায় রিক্সাচালক। রিক্সা চালিয়ে তার সংসার চলে। হাসানের আরেক ভাই দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন।

জাফরের স্ত্রী সেলিনা আক্তার বলেন, আমার স্বামী কখনো মাদক ইয়াবার সাথে জড়িত ছিল না। তিনি প্রবাসে জীবনের অধিকাংশ সময় কাটিয়েছেন। তিনি খারাপ- এলাকায় কেউ এমন প্রমাণ দিতে পারবে না। আমি বিয়ষটি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হাসানের বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর শফিউল আলম বলেন, হাসান একজন দিনমজুর রিক্সা চালক। সে মাদক ইয়াবার সাথে কখনো জড়িত ছিল না।

কচুয়াই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন জানান, জাফর দীর্ঘদিন প্রবাসে ছিলেন। তার বিরুদ্ধে মাদকের মামলা দুরের কথা একটি সাধারণ ডায়েরিও ছিল না, তাকে অন্যায়ভাবে ক্রসফায়ার দেওয়া হয়েছে।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর চট্টগ্রামের (দক্ষিণ) পরিদর্শক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, জাফর ও হাসান নামে যে দুজনকে ক্রসফায়ার দেওয়া হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্যের কোন মামলা আছে এই ধরনের তথ্য আমাদের হাতে নেই।

জানা গেছে, গত ১২ মার্চ ছুটিতে দেশে ফিরেছিলেন জাফর।

গত রোববার জাফরের পরিবার চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান এবং কক্সবাজারের হরবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক আমিনুল ইসলামকে হত্যার অভিযোগে পটিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলায় সাক্ষী হিসেবে নাম দেওয়া হয়েছে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বারসহ নয় জনের। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্টকে (সিআইডি) এই ঘটনার তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

জাফরের বাবা আবদুল আজিজ বলেন, আমার ছেলে গত নয় বছর ওমানে ছিল। আমাদের সঙ্গে কদিন থাকতে প্রতিবছরই পটিয়ার কচুয়াই ইউনিয়নের বাড়িতে আসত। এবারও তার চলে যাওয়ার কথা ছিল আরও আগেই। কিন্তু করোনা মহামারির কারণে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ থাকায় সে যেতে পারেনি।

তিনি বলেন, আমি নিজে ১৮ বছর ওমানে কাজ করে আমার পরিবারের ভাগ্য বদলাতে পারিনি। আমার ছেলেটা পেরেছিল। সে ভালো বেতনের চাকরি করত। তার পাঠানো টাকা দিয়েই আমরা আমাদের বাড়িসহ আরো অনেক সম্পত্তি কিনেছি।

আজিজ জানান, গত ২৯ জুলাই ভোর ৬টার দিকে পুলিশের পোশাকধারী দুই জন এবং সাদা পোশাকের আরও বেশ কয়েকজন তাদের বাড়িতে উপস্থিত হন। এটা কথিত বন্দুকযুদ্ধের দুদিন আগের ঘটনা। জাফর দরজা খুলে দিলে তারা পটিয়া থানার সদস্য হিসেবে নিজেদের পরিচয় দেন।

এরপর পুলিশ তার ছেলেকে নিয়ে কক্সবাজারের দিকে চলে যায় জানিয়ে তিনি বলেন, তারা আমার ছেলের হাতে হাতকড়া পড়ান। একপর্যায়ে তারা তার ঘরে তল্লাশি করেন এবং আলমারি থেকে দামি জিনিসপত্র সব নিয়ে যান।

আজিজের অভিযোগ, পুলিশ পরে তাদের একাধিকবার ফোন করে এবং ছেলের মুক্তির জন্য ৫০ লাখ টাকা দাবি করে। টাকা দিতে না পারলে জাফরকে বন্দুকযুদ্ধে’ মেরে ফেলারও হুমকি দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, ৩১ জুলাই স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার আনোয়ার হোসেন আমাদের ফোনে জানান, কক্সবাজারে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জাফর নিহত হয়েছে। তার মরদেহ কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের মর্গে রাখা আছে।

যোগাযোগ করা হলে, কচুয়াই ইউনিয়নের চার নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আনোয়ার হোসেন বলেন, পটিয়া পুলিশ আমাকে বন্দুকযুদ্ধের খবর জানিয়ে বলেছিল যে জাফরের পরিবারের যেন মর্গ থেকে তার মরদেহটি নিয়ে যায়। মাত্র দেড় বছর আগে বিয়ে করেছিলেন জাফর। জাফর অত্যন্ত বিনয়ী ছিলেন। যতদূর আমি জানি, কোনো থানায় তার নামে কোনো প্রকার অপরাধমূলক রেকর্ড ছিল না।

জাফর বা হাসানের নামে পটিয়া থানায় কোনো অপরাধমূলক রেকর্ড আছে কি? এমন প্রশ্নের জবাবে থানার ওসি বোরহান উদ্দিন বলেন, নথিপত্র যাচাই না করে আমি কোনো মন্তব্য করতে পারব না। পরে আপনাকে এটা জানাব।

৩১ জুলাইয়ের ঐ ‘বন্দুকযুদ্ধে’র শিকার হাসান পটিয়া পৌরসভার ছয় নম্বর ওয়ার্ডের পাইকপাড়া এলাকার একজন দরিদ্র রিকশাচালক ছিলেন।

ঐ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শফিউল আলম বলেন, হাসান তার পরিবার চালাতে দিনরাত পরিশ্রম করত। আমি যতদূর জানি, তার কোনো ধরনের অপরাধের রেকর্ড ছিল না। পটিয়া পুলিশ আমাকে জানায় যে পুলিশের সঙ্গে গুলি বিনিময়ের ঘটনায় হাসান নিহত হয়েছে। পরে আমি তার পরিবারকে বিষয়টি জানাই।

এই পৌরসভার ভেতরে আরো একজন হাসান আছেন, যিনি ইয়াবা ব্যবসায়ী বলে পরিচিত জানিয়ে কাউন্সিলর বলেন, এটা পরিচয়ের ভুলে হতে পারে।

এদিকে চকরিয়ায় কথিত অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক আমিনুল ইসলামের কাছে তিনদিন আগে গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা নিহত হওয়ার পর অজ্ঞাত পরিচয়ে কেন প্রচার করা হল- এমন প্রশ্ন রাখা হলে তিনি জানান, এ বিষয়ে চকরিয়া থানার ওসিই ভাল বলতে পারবেন। এর পরপরই ‘জরুরি মিটিং’ আছে বলে লাইন কেটে দেন তিনি।-পূর্বপশ্চিমবিডি

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com