1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

মেরিন ড্রাইভ ৩ মাস বন্ধ

  • Update Time : শনিবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
  • ৪১ Time View

।।কক্সবাজার প্রতিনিধি।।

কক্সবাজার পৌরসভাস্থ কলাতলীর ডলপিন মোড় থেকে বেলি হ্যাচারী পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার সড়কের সংস্কার কাজ শুরু হচ্ছে। এ কারণে আগামী প্রায় ৩ মাস এই সড়ক দিয়ে সকল ধরণের যানবাহন চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে।

২ ফেব্রুয়ারী থেকে আনুষ্ঠানিক কাজের উদ্বোধন হওয়ার কথা। কক্সবাজার পৌরসভা নিজস্ব তহবিলের প্রায় সাড়ে ১১ কোটি টাকা বরাদ্দে বহুমাত্রিক গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কের সংস্কার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মেয়র মুজিবুর রহমান।

তিনি জানান, অধিক যানচলাচল ও দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় পর্যটন নগরীর অতি গুরুত্বপূর্ন এই সড়কের বেহাল দশা। ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে প্রতিদিন। তাই সড়কটি জরুরী ভিত্তিতে সংস্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কাজ চলাকালীন এই সড়কের বিকল্প হিসেবে লিংকরোড হয়ে মেরিন ড্রাইভ সড়কটি ব্যবহারের অনুরোধ, সেই সাথে নির্মাণ কাজ বাস্তবায়নে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন মেয়র মুজিবুর রহমান।

কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত পৌরবাসী ও সড়ক হয়ে চলাচলকারীদের অনাকাঙ্খিত কষ্টের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি।

কক্সবাজার থেকে টেকনাফ পর্যন্ত সমুদ্রের তীর ধরে হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে গড়ে ওঠা ৮০ কিলোমিটার দীর্ঘ মেরিন ড্রাইভ সড়কের উদ্বোধন হয় ২০১৭ সালের ৬ মে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সড়কটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। তবে ১৯৯১-৯২ সালে সড়ক প্রকল্পটি গ্রহণের পর তখন থেকেই নির্মাণ কাজ শুরু হয় মেরিন ড্রাইভের। কিন্তু মেরিন ড্রাইভের স্টার্টিং পয়েন্ট কক্সবাজার শহরের কলাতলী থেকে বেইলি হ্যাচারি মোড় পর্যন্ত প্রায় ১৩শ মিটার সড়ক বিগত ২০০০ সালে সামুদ্রিক ভাঙনে বিলীন হয়ে গেলে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে সড়ক যোগাযোগ প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। পরে ২০০৫-০৬ সালে কলাতলী গ্রামের সংকীর্ণ সড়কটিকে সামান্য প্রশস্ত করে মেরিন ড্রাইভের সাথে সংযুক্ত করে দেয়া হয়। কিন্তু পরবর্তীতে এ সড়কটিতে রাস্তার পাশ্ববর্তী নালা বন্ধ করে দিয়ে গড়ে তোলা হয় একের পর এক ভবন। ফলে পানি নিষ্কাষণের পথ না থাকায় বর্ষাকালে রাস্তার ওপর বৃষ্টির পানি জমে রাস্তা ভেঙ্গে যায়। বর্তমানে এ সড়কে বড় বড় খানাখন্দকের সৃষ্টি হওয়ায় খুব সাবধানে যানবাহন চলাচল করতে হচ্ছে। ভুল গর্তে নামিয়ে দিলেই গাড়ি উল্টে যাচ্ছে বা অপর গাড়ির সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ দূর্ভোগ নিরসনে পৌরকর্তৃপক্ষ মেরিন ড্রাইভে যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ করেই সড়ক সংস্কারের উদ্যোগ নেয়।

কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের কলাতলী সংযোগ সড়ক বন্ধ রাখার ব্যাপারে আগেই সিদ্ধান্ত হলেও পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান স্বাক্ষরিত গণবিজ্ঞপ্তিটি শুক্রবারই গণমাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। ফলে এনিয়ে বিভিন্ন মহলে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়।
বিশেষ করে কলাতলীর দক্ষিণ অংশে বসবাসকারী কয়েক হাজার স্কুলগামী শিশুর অভিভাবকদের মাঝে নতুন উদ্বেগ-উৎকন্ঠা তৈরি করে।

কলাতলীর দক্ষিণে মেরিন ড্রাইভের ২০ কিলোমিটারের মধ্যে দুটি প্রাথমিক বিদ্যালয় থাকলেও কোন হাইস্কুল নেই। আবার অধিকাংশ শিশু কলাতলী উত্তর অংশে পড়ালেখা করে। ফলে প্রতিদিন গড়ে ৬ কিলোমিটারেও বেশি পথ পায়ে হেঁটে শিশুদেরকে স্কুলে যাতায়াত করতে হবে বলে জানান দরিয়ানগরের বাসিন্দা ও স্কুলগামী দুই শিশুর মাতা মস্তুরা আকতার।

মেরিন ড্রাইভ বন্ধ থাকার কারণে তার সন্তানদের সুষ্ঠু পড়ালেখা ও নিয়মিত স্কুলে যাতায়াত নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

মেরিন ড্রাইভ বন্ধ থাকলে দরিয়ানগরের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ ইসমাইল সওদাগর ও কাশেম সওদাগর শহর থেকে কীভাবে দোকানে মালামাল আনবেন তা নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন বলে জানান।

মেরিন ড্রাইভ বন্ধ থাকলে হিমছড়ি ও দরিয়ানগর পর্যটন স্পটে পর্যটক কমে যাবে এবং কলাতলী থেকে দক্ষিণে প্রায় ২৪ কিলোমিটার এলাকার হোটেল-মোটেলসহ অন্যান্য পর্যটন ব্যবসায়ীরা মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মনে ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশন অব কক্সবাজারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম কিবরিয়া খান।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com