1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

নারীকে পেটালেন যুবলীগ নেতা

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৪৭ Time View

ডিবিডি রিপোর্ট : বরগুনার তালতলী উপজেলায় ছবি তুলতে বাধা দেওয়ায় এক নারীকে প্রকাশ্যে রাস্তায় ফেলে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. হাবিবুর রহমান কামাল মোল্লা ও তার দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় সদর রোডের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত শ্রীসাগর নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ওই রাতেই রোজিনা আক্তার বাদী হয়ে তালতলী থানায় যুবলীগ নেতা কামাল মোল্লাসহ তিনজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

জানা গেছে, উপজেলার তেতুঁলবাড়িয়া গ্রামের রোজিনা আক্তার একটি কাজে তালতলী উপজেলা শহরে আসেন। ওই শহরের বাঁধঘাট চৌরাস্তায় মনিকা সাতক্ষীরা দধি ঘরে বসে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে তার পরিচিত জলিল নামের একজনের সঙ্গে দধি খাচ্ছিলো। এ সময় তালতলী উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কামাল মোল্লার সহযোগী সাগর ও সাগর মিয়া নামের দুজন এসে মোবাইলে তাদের ছবি ধারণ করে। ওই সময়ে রোজিনা তাদের তাদের ছবি তুলতে নিষেধ করলে ক্ষেপে যান সাগর ও তার আরেক সহযোগী সাগর মিয়া। এক পর্যায়ে তারা ওই নারীকে দধি ঘরে বসে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা ও মারধর শুরু করে। এর কিছুক্ষণ পরই যুবলীগ নেতা কামাল মোল্লা ঘটনাস্থলে এসে তাদের সঙ্গে যোগ হয়ে ওই নারীকে টেনে হেচড়ে রাস্তায় নিয়ে আসে এবং রাস্তায় ফেলে প্রকাশ্যে বেধরক মারধর করে। ওই নারীর ডাক চিৎকারের শত শত লোক এসে জড়ো হয় কিন্তু যুবলীগ নেতার ভয়ে কেউ ওই নারীকে রক্ষায় এগিয়ে আসেনি। ওই নারীকে মারধর করে রাস্তায় ফেলে চলে যান যুবলীগ নেতা। পরে স্থানীয়রা ওই নারীকে উদ্ধার করে তালতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।

ওই হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে ওই নারী তালতলী থানায় যাওয়ার পথে কামাল মোল্লা বাঁধা দেয়। তার নির্দেশে কোন গাড়ী ওই নারীকে নিয়ে থানায় যেতে সাহস পায়নি। পরে স্থানীয় একজনের সহযোগিতায় ওই নারী থানায় যান। এ ঘটনায় ওই রাতেই আহত রোজিনা আক্তার বাদী হয়ে তালতলী থানায় সাগরকে প্রধান আসামী করে যুবলীগ নেতা কামাল মোল্লাসহ তিনজনের নামে মামলা করেন। পুলিশ আসামী সাগরকে গ্রেপ্তার করেছে। যুবলীগ নেতার ভয়ে পুলিশ ওই নারীকে রাতে থানা হেফাজতে রেখেছে। বুধবার পুলিশ ওই নারীকে আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে জবানবন্দি গ্রহণ করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বলেন, উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক কামাল মোল্লা প্রকাশ্যে এক নারীকে রাস্তায় ফেলে মারধর করেছে। যুবলীগ নেতার ভয়ে ওই নারীকে রক্ষায় কেউ এগিয়ে আসেনি। শত শত মানুষ দাঁড়িয়ে দেখেছেন। এ ঘটনায় তালতলীতে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তারা আরও বলেন, কামাল মোল্লা তালতলীতে মূর্তিমান আতঙ্ক। সে কাউকে পরোয়া করে না। সকল ধরনের অপরাধের সঙ্গে কামাল মোল্লা জড়িত। তার এমন কর্মকাণ্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

আহত রোজিনা বলেন, আমি আর আমার এক পরিচিত জলিল মিয়া মনিকা সাতক্ষীরা দধি ঘরে বসে দধি খাচ্ছিলাম। এমন মুহূর্তে দুটি ছেলে এসে আমাদের ছবি তুলছিল। আমি এর প্রতিবাদ করলেই আমাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা ও মারধর শুরু করে। কিছুক্ষণ পরে কামাল মোল্লা এসে আমাকে ওই ঘর থেকে টেনে হেচড়ে রাস্তায় নামিয়ে বেধড়ক মারধর করে। আমি বহু অনুনয় বিনয় করেও কামাল মোল্লার মন গলাতে পারিনি। আমি কী অপরাধ করেছি জানিনা। আমি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

অভিযুক্ত তালতলী উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কামাল মোল্লা বলেন, এ ঘটনার সঙ্গে আমার কোনও সংশ্লিষ্টতা নেই। আমাকে অন্যায়ভাবে জড়ানো হয়েছে। তবে তিনি দুই সাগরের পক্ষ অবলম্বন করে বলেন, তারা ওই নারীকে মারধর করেনি।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা যুবলীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান মহারাজ বলেন, ‘এ বিষয়টি আমি জানি না। অভিযোগ পেলে দ্রুত সময়ের মধ্যে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমার দলে কেউ বদনাম করবে এমন কারও দলে জায়গা হবেনা।’

এ বিষয়ে তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। শ্রীসাগর নামে এক আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অপর আসামিদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com