1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

চারটি দাবি উত্থাপনের আহ্বান অধিকার মঞ্চের

  • Update Time : শুক্রবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
  • ৪৭ Time View

।।ক্যাম্পাস ডেস্ক।।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চারটি বিষয়ে দাবি উত্থাপনের আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী অধিকার মঞ্চ।

শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানান মঞ্চের নেতারা।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে উপস্থাপিত বিষয়গুলো হলো- সভাপতির ক্ষমতার ভারসাম্য, শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে সভাপতি নির্বাচন, নির্বাচিত প্রতিনিধিদের শিক্ষার্থীদের প্রতি দায়বদ্ধতা এবং ভোটকেন্দ্র কোথায় হবে, তা নিয়ে গণভোটের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মতামত গ্রহণ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন শিক্ষার্থী অধিকার মঞ্চের মুখপাত্র মওদুদ মিষ্টি। এতে বক্তব্য দেন অধিকার মঞ্চের আইনজীবী মনজিল মোর্শেদ, মঞ্চের অন্য দুই মুখপাত্র নূর বাহাদুর ও নুরে আলম দুর্জয়। এতে মঞ্চের নেতা তোহা ফারুকসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মনজিল মোর্শেদ বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৮ বছর ধরে কেন ডাকসু নির্বাচন হয়নি- এটা সবার প্রশ্ন। তার মতে, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা তাদের ক্ষমতা ধরে রাখার জন্য নির্বাচন দেননি। রিট করার পর শুনানিতে বিভিন্ন উপাচার্যের আইনজীবীরা আদালতে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছেন যে, রায় বিলম্বিত হয়েছে। তবে বর্তমান উপাচার্যের আইনজীবী এমন কোনো আচরণ করেননি উল্লেখ করে তাকে ধন্যবাদ জানান।

নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র নিয়ে অধিকার মঞ্চের অবস্থান জানতে চানতে চাইলে তিনি বলেন, ক্যাম্পাসে সহাবস্থান নিয়ে বিতর্কের কারণেই আজ ভোটকেন্দ্র নিয়ে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। অধিকাংশ সংগঠনই হলের বাইরে ভোটকেন্দ্র চেয়েছে। কিন্তু প্রশাসন তাদের কথা শোনেনি। যদি ভোট হলেই হয়, তবে প্রশাসনকে সুষ্ঠু ভোট নিশ্চিত করতে হবে।

লিখিত বক্তব্যে মওদুদ মিষ্টি বলেন, ডাকসুর বর্তমান সংবিধানে শিক্ষার্থীদের স্বার্থে আন্দোলন ও অবস্থান নেওয়ার ক্ষমতা কতটা দেওয়া আছে, সেটি খতিয়ে দেখা দরকার। বলা হচ্ছে, ইউনিয়নটি শিক্ষার্থীদের। অথচ এর চূড়ান্ত ক্ষমতা উপাচার্যের হাতে।

মওদুদ মিষ্টি আরও বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ডাকসুর সভাপতি হওয়া উচিত নয়। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ডাকসুর সভাপতি কমিটি বাতিল কিংবা নির্বাচন স্থগিত রাখার ক্ষমতা রাখেন। এটি মুক্তচিন্তা ও জ্ঞানচর্চায় প্রতিবন্ধক, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এ ছাড়াও যিনি ছাত্রদের মধ্য থেকে সভাপতি নির্বাচিত হবেন, শিক্ষার্থীদের কাছে তার দায়বদ্ধতার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

২০১২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ডাকসু ভবনের সামনে সংবাদ সম্মেলন করে কর্মসূচি ঘোষণা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী অধিকার মঞ্চ। ওই বছরের ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে এ মঞ্চ গঠিত হয়। শুরুর দিকে এই মঞ্চ আদালতে ২৫ শিক্ষার্থীর রিট করতে যাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়। সেই রিটের সূত্র ধরেই আগামী ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com