1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ ইয়াবা কারবারি নিহত

  • Update Time : শনিবার, ২৮ মার্চ, ২০২০
  • ২৪ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক : টেকনাফে বিজিবি ও পুলিশের সঙ্গে ইয়াবা কারবারিদের মধ্যে পৃথক বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় রোহিঙ্গাসহ চারজন নিহত এবং বেশ কিছু ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে।

শনিবার ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা ছুরিখাল এলাকা এবং হোয়াইক্যং ইউনিয়নের তুলাতলি এলাকায় পৃথক এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে।

বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্ণেল মো. ফয়সল হাসান খান জানিয়েছেন, শনিবার ভোর রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা ছুরিখাল এলাকায় বিজিবির সঙ্গে মাদক কারবারিদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় ৩ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার ইয়াবা এবং ২ টি দেশিয় তৈরী বন্দুক, ২ টি গুলি, ১ টি গুলির খালি খোসা ও ১ টি ধারালো কিরিচ দা।

তবে নিহতদের মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক বলে ধারণা করা হলেও তাদের নাম ও পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেননি বিজিবির অধিনায়ক।

লে. কর্ণেল ফয়সল বলেন, শনিবার ভোর রাতে টেকনাফের লেদা ছুরিখাল এলাকা দিয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার বড় একটি চালান পাচার হয়ে আসার খবরে বিজিবির একটি দল অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে মিয়ানমার দিক থেকে নৌকা দিয়ে ৪/৫ জন লোক নাফ নদী পার হয়ে আসতে দেখে বিজিবির সদস্যরা থামার জন্য নির্দেশ দেয়। বিজিবির সদস্যদের দেখতে পেয়ে সন্দেহজনক লোকজন দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করে।

“ বিজিবির সদস্যরা ধাওয়া দিলে সন্দেহজনক লোকজন অতর্কিত গুলি ছুড়তে থাকে। বিজিবির সদস্যরাও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়ে। এক পর্যায়ে কেওড়া বনের ভিতর দিয়ে কয়েকজন পালিয়ে গেলেও গোলাগুলি থামার পর ঘটনাস্থলে ৩ জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এতে বিজিবির ৩ সদস্য আহত হয়েছে। ঘটনাস্থলে তল্লাশী করে পাওয়া যায় ১ লাখ ৮০ হাজার ইয়াবা, দেশিয় তৈরী ২ টি বন্দুক, ২ টি গুলি, ১ টি গুলির খালি খোসা ও ১ টি ধারালো কিরিচ দা। ”

ফয়সল বলেন, “ গুলিবিদ্ধদের উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে সেখানে আনা হলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ৩ জনকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতরা ৩ জনই মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক বলে ধারনা করা হলেও তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া সম্ভব হয়নি। ”

নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে বলে জানান বিজিবির এ ব্যাটালিয়ান অধিনায়ক।

এদিকে টেকনাফ থানা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানিয়েছেন, শনিবার ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের তুলাতলি এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে চিহ্নিত এক মাদক ব্যবসায়ি নিহত হয়েছে।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে ১৫ হাজার ইয়াবা, দেশিয় তৈরী ১ টি বন্দুক ও ৩ টি গুলি।

ঘটনায় নিহত মুসা আকবর (৩৬) টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের তুলাতলি এলাকার আবুল বশরের ছেলে।

তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসাসহ নানা অভিযোগে ৮ টির বেশী মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ওসি প্রদীপ বলেন, শনিবার ভোর রাতে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের তুলাতলি এলাকায় মাদক লেনদেনের জন্য কতিপয় লোকজন অবস্থান করছে খবরে পুলিশের একটি দল অভিযান চালায়। এসময় ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে মাদক ব্যবসায়িরা গুলি ছুড়তে থাকে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়ে।

“ এক পর্যায়ে গোলাগুলি থেমে গেলে ঘটনাস্থলে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। ঘটনাস্থল তল্লাশী করে পাওয়া যায় ১৫ হাজার ইয়াবা, দেশিয় তৈরী ১ টি বন্দুক ও ৩ টি গুলি। এতে পুলিশের ৩ সদস্য আহত হয়েছে। ”
ওসি বলেন, “ গুলিবিদ্ধ ব্যক্তিকে উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। এসময় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে সেখানে আনা হলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ”

প্রদীপ জানান, নিহত মুসা আকবর একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ি। মাদক ব্যবসাসহ নানা অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ৮ টির বেশী মামলা রয়েছে।

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান ওসি প্রদীপ।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com