1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

টাইগারদের ভূয়সী প্রশংসা করে আইসিসি’র বিবৃতি

  • Update Time : সোমবার, ৩ জুন, ২০১৯
  • ৩৫ Time View

।।ক্রীড়া ডেস্ক।।

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই টাইগারদের বাজিমাত। বড় আসরের সেরা দল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয় দিয়েই বাংলাদেশ তাদের ষষ্ঠ বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছে। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি টাইগারদের ভূয়সী প্রশংসা করে বিবৃতি দিয়েছে। দেখে নেওয়া যাক আইসিসির বিবৃতিতে কী কী উঠে এসেছে।

** বাংলাদেশ ২১ রানে হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে।
** বাংলাদেশই উপমহাদেশের একমাত্র দল, যারা দ্বাদশ বিশ্বকাপ শুরু করলো জয় দিয়ে।
** হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর নিজেদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দিয়েই দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়েছে বাংলাদেশ।
** ৬০০ প্লাস রানের ম্যাচে বাংলাদেশের রান ৩৩০, যা তাদের ব্যাটিং পাওয়ারকে প্রমাণ করেছে।
** ওয়ানডেতে এটি বাংলাদেশের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। এর আগে ২০১৫ সালের এপ্রিলে ঢাকায় পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ ৬ উইকেট হারিয়ে করেছিল ২২৯ রান।
** আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে তিন নম্বরে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকার থেকে চার ধাপ পিছিয়ে থেকেও বাংলাদেশ ম্যাচটি জিতেছে।

** দুই দলের মুখোমুখি ২২ ওয়ানডেতে বাংলাদেশ তাদের চতুর্থ জয়টি পেয়েছে। আর বিশ্বকাপের মঞ্চে বাংলাদেশ জিতলো দ্বিতীয়বার। ২০০৭ সালে প্রোভিডেন্সে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬৭ রানে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।
** প্রোভিডেন্সের সেই ম্যাচ আর ওভালের এই ম্যাচে বাংলাদেশের তিনজন ক্রিকেটার ছিলেন। সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম এবং মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। প্রোভিডেন্সের সেই ম্যাচে এই তিন ক্রিকেটার দলের জয়ে সামান্য ভূমিকা রাখলেও ১২ বছর পর ওভালের এই ম্যাচে তারা দারুণ করেছেন।
** দলপতি হিসেবে মাশরাফি দলকে জিতিয়েছেন, কিন্তু সাকিব-মুশফিক সেই জয়ের পথ করে দিয়েছেন।
** তৃতীয় উইকেট জুটিতে সাকিব-মুশফিক ১৪২ রান তুলেছেন। যার মধ্যদিয়ে এই দুই ক্রিকেটার পঞ্চমবারের মতো শত রানের জুটি গড়েন।
** সাকিব-মুশফিক দুজনই শত রানের জুটি গড়ার পথে ফিফটির দেখা পেয়েছেন।
** সাকিব ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ৪৩তম ফিফটির দেখা পান ৫৪ বল মোকাবেলা করে। ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে সাকিব পঞ্চম অলরাউন্ডার যিনি ২৫০ উইকেটের পাশাপাশি ৫ হাজার ওয়ানডে রান স্পর্শ করেছেন। এই তালিকায় সাকিবের পরে আছেন সনাথ জয়সুরিয়া, জ্যাক ক্যালিস, শহিদ আফ্রিদি এবং আবদুল রাজ্জাক। তবে, বাকিদের থেকে দ্রুততম সময়ে (১৯৯ ম্যাচ) সাকিব এই কীর্তিতে নাম লিখিয়েছেন।
** মুশফিক ওয়ানডে ক্যারিয়ারে তার ৩৪তম ফিফটির দেখা পেয়েছেন ৫২ বল মোকাবেলা করে।

** গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো দক্ষিণ আফ্রিকার পেস ব্যাটারিকে দুর্দান্তভাবে সামাল দিয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। শর্ট বলে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা থার্ডম্যানে পাঠিয়ে রান তুলেছে। ওভারপ্রতি যা তাদের ৬ এর উপরে রান রেখেছে।
** উল্লেখ করার মতো বিষয় হলো, শেষ দশ ওভারে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা ৮৬ রান তুলেছে। যেখানে ২০১৫ বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশ ৪০ থেকে ৫০ ওভারে গড়ে তুলেছে ৬৬ রান। ওভালের এই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে বাংলাদেশ তাদের ব্যবধান দেখিয়েছে। যেখানে শেষ দশ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার দরকার ছিল ১০৩ রান। তারা ৮১ রান তুলতে সমর্থ হয়।
** বাংলাদেশের ব্যাটিং পাওয়ার দেখিয়েছে তারা রানের জন্য কতটা ক্ষুধার্ত। ২০১৫ বিশ্বকাপের পর এই চার বছরে তারা খেলেছে ১৮টি ওয়ানডে সিরিজ। যেখানে বাংলাদেশ জিতেছে ৯টি ওয়ানডে সিরিজ। এর মধ্যে ঘরের মাটিতে ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবুয়ে এবং আফগানিস্তানকে হারিয়েছে। ঘরের মাঠে তো বটেই উইন্ডিজদের মাঠে গিয়েও সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। সবশেষ আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ।
** ওয়ানডেতে আরও উন্নতি করতে বাংলাদেশ ২০১৮ সালে দলের পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেয় দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক তারকা ব্যাটসম্যান এবং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জিকে। তাছাড়া, তাদের ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক, যিনি দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক গ্রেট জিমি কুকের ছেলে।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com