1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

চিত্রশিল্পী ফরিদ আহম্মদ চৌধুরীর দাফন সম্পন্ন

  • Update Time : মঙ্গলবার, ৭ মে, ২০১৯
  • ৭৪ Time View

।।প্রেস বিজ্ঞপ্তি।।

উখিয়া বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী ফরিদ আহম্মদ চৌধুরীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তিনি কক্সবাজার রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও দৈনিক মানবজমিনের স্টাফ রিপোর্টার রাসেল চৌধুরীর পিতা।

সোমবার দুপুর ২টায় চৌধুরীপাড়া এতিমখানা মাঠে নামাজে জানাজা শেষ তাকে চৌধুরীপাড়াস্থ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাজায় ইমামতি করেন মরহুমের বড় ভাই বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন মৌলানা মীর আহমেদ চৌধুরী।

মরহুমের চাচাত ভাই সাংবাদিক ইমরুল কায়েস চৌধুরীর পরিচালনায় জানাজা পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহমুদুল হক চৌধুরী, উখিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সরওয়ার জাহান চৌধুরী, উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, হলদিয়া পালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ আলম, জালিয়া পালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরী, কক্সবাজার নিউজ ডট কম সম্পাদক অধ্যাপক আকতার চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা মাহবুবুল আলম, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক ইমাম হোসেন ও মরহুমের পুত্র সাংবাদিক রাসেল চৌধুরী।
জানাজায় জেলা আওয়ামীলীগ নেতা আদিল উদ্দিন চৌধুরী, আবুল মনসুর চৌধুরী, উপজেলা জামায়াত ইসলামী আমির মৌলানা আবুল ফজলসহ সাংবাদিক, রাজনৈতিক ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, চিত্রশিল্পী ফরিদ আহমেদ চৌধুরী মাত্র ৬৩ বছর বয়সে ভারত থেকে চিকিৎসা নিয়ে ফেরার পথে ব্যাংকক এয়ারপোর্টে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। ফরিদ আহম্মদ চৌধুরী দীর্ঘ ৫ মাস ধরে ফুসফুসে ক্যান্সারজনিত রোগে ভোগছিলেন। এ সময়ে তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল, ঢাকা পিজি হসপিটাল, মহাখালী ক্যান্সার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে গত ২৭ এপ্রিল ভারতের দিল্লীর প্বার্শবর্তী হারিয়ানা প্রদেশে অবস্থিত পৃথিবীর অন্যতম মেদান্তা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা: অশোক বেদ ও ডা: জয়তির তত্বাবধানে ৫ দিন আইসিইউতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। সেখানে ডাক্তাররা সর্বশেষ পরীক্ষানিরীক্ষা ও পর্যবেক্ষণ শেষে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতির কোন সম্ভাবনা নেই জানিয়ে তাকে দ্রুত সময়ে বাংলাদেশে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। ৩ মে দিল্লী থেকে ব্যাংকক হয়ে তাকে বাংলাদেশে নিয়ে আসার পথে ব্যাংকক এয়ারপোর্টে ৪ টা ৪৫ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।
তার মৃত্যু খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। ব্যক্তিজীবনে ফরিদ আহম্মদ চৌধুরী সৎ, নিষ্ঠাবান, বন্ধুবৎসল ও অমায়িক লোক হিসাবে সবার কাছে সমান জনপ্রিয় ছিলেন। স্বনামখ্যাত চিত্রশিল্পী ফরিদ আহম্মদ চৌধুরী একজন মেধাবী সংগঠক ছিলেন। তিনি অভিবক্ত হলদিয়া ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের তিন মেয়াদে সভাপতিসহ দীর্ঘ ৩০ বছর সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় থেকে দায়িত্বপালন করেন। তিনি উখিয়া কোটবাজার খেলাঘর আসর ও উখিয়া আর্টক্লাবের প্রতিষ্ঠা সভাপতি। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত ছিলেন। মৃত্যুকালে ফরিদ আহম্মদ চৌধুরী স্ত্রী, ৭ পুত্র ও দুই কন্যা সন্তান রেখে যান।

ফরিদ আহম্মদ চৌধুরীর মেঝছেলে উখিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক সাংবাদিক রাসেল চৌধুরী পরিবারের পক্ষ থেকে তার মরহুম পিতার আত্নার মাগফেরাতের জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com