1. azadzashim@gmail.com : বিডিবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :
  2. litonsaikat@gmail.com : neelsaikat :

কক্সবাজারের ৫ উপজেলায় প্রত্যাশিত ভোটারের দেখা মিলেনি

  • Update Time : রবিবার, ২৪ মার্চ, ২০১৯
  • ৪৩ Time View

।।সারাদেশ ডেস্ক।।

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কক্সবাজারের ৫টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ সকাল ৮ টা থেকে শুরু হলেও প্রত্যাশিত ভোটারের দেখা মিলছে না কেন্দ্রগুলোতে।

সরেজমিনে, টেকনাফ, উখিয়া, রামু, মহেশখালী, পেকুয়ার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করে দেখা যায়, ভোট শুরুর দুই ঘন্টা পরও কেন্দ্র গুলো ফাঁকা দেখা গেছে।

এদিকে পেকুয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মগনামা ইউনিয়নের দক্ষিণ মগনামা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দূর্বৃত্তের গুলিতে ৪ভোটার গুরুতর আহত হয়েছেন।

রবিবার সকাল ৯.১৫ মিনিটে ওই কেন্দ্রে গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত ভোটার আবুল হোছেন, ছাদেক, বদি, রমিজ একই এলাকার বাসিন্দা। এমনকি দায়িত্বরত ম্যাজিস্ট্রেটের সামনেও গুলি অব্যাহত রেখেছে দূর্বৃত্তরা।

দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা নুর আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, কেন্দ্রের বাইরে ধাওয়া পাল্টা ও গুলিবিদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। আহত হয়েছে কিনা জানা নেই।

তবে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে প্রশাসন সুত্রে জানানো হয়েছে।

এবারের নির্বাচনে উল্লিখিত ৫ উপজেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৫২ জন প্রার্থী। তাঁদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১২ প্রার্থী, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৯ প্রার্থী এবং সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১১ প্রার্থিনী। ৫ উপজেলার ভোটার সংখ্যা ৮ লাখ ৫৯ হাজার ৬৫ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ৪ লাখ ৪০ হাজার ৪৭৭ জন। মহিলা ভোটার রয়েছেন ৪ লাখ ১৮ হাজার ৬১৮ জন। সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ চলবে।
১১ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত রামু উপজেলার মোট ভোটার ১ লাখ ৫৮ হাজার ১৮ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ৮১ হাজার ৪১০ জন। নারী ভোটার রয়েছেন ৭৬ হাজার ৬০৮ জন। তাদের জন্য ৬১ টি কেন্দ্র স্থাপন করা হবে । কক্ষ স্থাপন করা হবে ৩১৮ টি।

রামু উপজেলায় মোট ৯ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাঁদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২ প্রার্থী, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ প্রার্থী এবং সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ প্রার্থি রয়েছে।

চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ২ প্রার্থী হলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও রামু উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রিয়াজুল আলম এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী ও রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোহেল সরওয়ার কাজল। এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান ভাইস-চেয়ারম্যান আলী হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সালাহ উদ্দিন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন ও খুনিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ্ সিকদার। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারি ৩ প্রার্থিনী হলেন, আফসানা জেসমিন পপি, মনোয়ারা ইসলাম নেভী এবং মুসরাত জাহান মুন্নী।

১ টি পৌরসভা এবং ৮ টি ইউনিয়নের নিয়ে গঠিত মহেশখালী উপজেলায় ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ১১ হাজার ৬১৬ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৯ হাজার ৯৪৯ এবং নারী ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ১ হাজার ৬৬৭ জন। এই উপজেলার কেন্দ্র স্থাপন করা হবে ৬৮ টি। কক্ষ সংখ্যা হবে ৩৮২।

মহেশখালী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৪ প্রার্থী হলেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ হোছাইন ইব্রাহিম। স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক সাজেদুল করিম, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ শরীফ বাদশা এবং ইসলামিক ফ্রন্ট এর এরফান উল্লাহ্।
এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৭ প্রার্থী হলেন, জাফর আলম, আবু সালেহ, মোঃ জহির উদ্দিন, ফরিদুল আলম, মাহাবুবুল আলম, শাহ নেওয়াজ কামাল এবং গিয়াস উদ্দিন। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিকারিণী ২ প্রার্থি হলেন, মনোয়ারা কাজল এবং মিনুয়ারা ছৈয়দ।

৫ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত উখিয়া উপজেলার মোট ভোটার ১ লাখ ১৮ হাজার ৭৮৫ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ৬০ হাজার ৪ ৮৮ জন। নারী ভোটার রয়েছেন ৫৮ হাজার ২৯৭ জন। তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য স্থাপন করা হচ্ছে ৪৫ টি কেন্দ্র। যার কক্ষ সংখ্যা হবে ২৩৮।

ইতঃপূর্বে চেয়ারম্যান এবং সংরক্ষিত ভাইস চেয়ারম্যান পদে কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী না থাকায় উখিয়া উপজেলায় হামিদুল হক চৌধুরী এবং কামরুন নেছা চৌধুরীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করেন রিটার্নিং অফিসার। ফলে উপজেলাটিতে আজ শুধু ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আজকের নির্বাচনে উখিয়া উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৬ প্রার্থী হলেন, মাহাবুবুল আলম, জাহাঙ্গীর আলম, নুরুল হুদা, আরাফাত উর রহমান জিয়ান চৌধুরী, মোঃ রাসেল এবং রুহুল আমিন।
১ টি পৌরসভা এবং ৬ টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত টেকনাফ উপজেলায় ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ৬৪ হাজার ৪০৬ জন। এই উপজেলায় পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ১ লাখ ৩৩ হাজার ১০ এবং নারী ভোটারের সংখ্যা ১ লাখ ৩১ হাজার ৩৯৬। তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য স্থাপন করা হবে ১১০ টি কেন্দ্র। যার কক্ষ সংখ্যা হবে ৫৩০টি।

এই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৩ প্রার্থী, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮ প্রার্থী এবং সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ প্রার্থিনী রয়েছেন। চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৩ প্রার্থী হলেন, টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী এবং স্বতন্ত্র ২ প্রার্থী টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান জাফর আহমদ এবং উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নুরুল আলম।
ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৬ প্রার্থী হলেন, জাবেদ ইকবাল চৌধুরী, দেলোয়ার হোসেন, নুরুল হক, ছৈয়দ আলম, রফিক উদ্দিন এবং সরওয়ার আলম। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারিণী ৪ প্রার্থি হলেন, তাহেরা বেগম, মনোয়ারা পারভীন, মিজবাহার ইউসুফ এবং সমজিদা বেগম।

৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত পেকুয়া উপজেলার ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৬ হাজার ২৭০ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ৫৫ হাজার ৬২০ এবং নারী ভোটার রয়েছেন ৫০ হাজার ৬৫০ জন। উপজেলায় স্থাপন করা হবে ৪০ টি কেন্দ্র। উল্লেখিত সংখ্যক কেন্দ্রে থাকবে ২০০টি কক্ষ। পেকুয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৪ প্রার্থী। তাঁরা হলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, স্বতন্ত্র প্রার্থী এস.এম. গিয়াস উদ্দিন এবং পেকুয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম। এই উপজেলায় ভাইস- চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৬ প্রার্থী হলেন, মেহেদী হাসান, মেহের আলী, সাজ্জাদুল ইসলাম, মোঃ নাছির উদ্দিন, আজিজুল হক এবং মোঃ কায়সার উদ্দিন

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category
© 2018 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | dbdnews24.com
Site Customized By NewsTech.Com